Analog Clock

শনিবার, ১৮ জুন, ২০১৬

রিকার্শন -> প্রথম কিস্তিঃ



মনে করেন আপনার গ্রামে কর্মী আপনি একাই আছেন, গ্রামের মানুষ আপনাকে একটা কাজ দিছে, আপনি হিসেব করে দেখলেন কাজটা n টি অংশে বিভক্ত। সমস্যা হলো আপনার ক্যাপাসিটি মাত্র 1, অর্থাৎ আপনি কাজটার মাত্র 1 অংশ করতে পারবেন। যেহেতু গ্রামে আর কেউ কর্মী না, সেহেতু আপনার তখন আফসোস হবেঃ "ইসস, আমার মতো যদি আরেকজন থাকতো, তবে আমি আমার 1 অংশ করে তাকে বাকি n-1 অংশ টুকু করতে দিতাম।" এই ভেবে আপনি একটা "আপনি" কে তৈরী করলেন, অর্থাৎ গ্রামে "আপনি" এখন দুইটা, যেহেতু সেও একজন "আপনি", সেহেতু তার ক্যাপাসিটিও 1 অংশ করা। তো আপনি যখন তাকে n-1 অংশ করতে দিবেন, সে তখন মাথা চুলকে ভাববেঃ আরে, আমার ক্ষমতা তো মাত্র 1 অংশ করার, সো আরো একটা "আমি" থাকলে ভালো হতো যাকে আমি বাকি কাজটুকু করতে দিতাম"।
লক্ষ্য করুন, এই দ্বিতীয় "আপনি" কিন্তু জানেন না যে n এর মান একদম শুরু তে কি ছিলো, তার উপরে অর্পিত আসল মান n - 1 ই তার কাছে n । তো এই নতুন আপনির চরীত্র কাজ কর্ম আপনার আগের আপনির মতোই, সো সে নতুন আরেকটা "আপনি" তৈরী করে তাকে তার বাকি n - 1 অংশ করতে দিবে, যেটা আসলে প্রকৃত n - 1 - 1 = n - 2 অংশ ( দুইবার কাজটা 1 অংশ করে ছোট হয়েছে তাই দুইবার 1 বিয়োগ হলো )। এইভাবে এই কাহিনী যদি চলতে থাকে তবে একসময় কোনো এক নতুন "আপনি"র কাছে যে n টা পৌঁছাবে সেটার মান হবে 1 । সে কিন্তু আর ভাবার অবকাশ পাবেনা কোনো নতুন "আপনি" তৈরী করার কথা ভাবার। কারণ 1 তো তার ক্যাপাসিটির মধ্যেই পড়ে। সো এইভাবে সবকয়টা "আপনি" 1 অংশ করে করার ফলে পুরো কাজটাই শেষ হয়ে যাবে। তাই নয় কি ??
ওই যে শেষের যে "আপনি" আর কোনো নতুন "আপনি" কে তৈরী করার প্রয়োজন মনে করলো না, এইটাই হলো "বেজ কেস" অর্থাৎ ভিত্তি কেস, অর্থাৎ এর পরে আর গভীরে যাওয়ার দরকার নেই।
এতোক্ষণ যে সেম আপনিই একগাদা নিজেকে তৈরী করে একটা কাজ কে ছোট ছোট করে করে ফেললেন, এইটাই রিকার্শন, আর শেষে 1 নিয়ে থেমে যাওয়াটাই হলো রিকার্শনের বেজ কেস। এরপরে আর যাওয়া দরকার নেই।

মজা না ? ভেবে দেখেন কি চমতকার জিনিস টা।
আপনি জানেন, প্রকৃতিতেও রিকার্শন আছে ?
এই ডকুমেন্টারী টা টা আপনার জন্যেই।

মূল পোস্ট ছিলো এখানে...

রিকার্শন দ্বিতীয় কিস্তি...


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন